টপ নিউজ 24

অনলাইন ডেস্ক

কঠোর বিধিনিষেধ শেষে শর্তসাপেক্ষে দোকানপাট খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে সরকার।

একইসঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে গণপরিবহণ চলাচল করবে বলেও জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) আন্তঃমন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক শেষে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

চলমান কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ ১০ আগস্ট পর্যন্ত বহাল রেখেছে সরকার। ৫ আগস্ট বিধিনিষেধের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটি তা আরও ১০ দিন বৃদ্ধির পরামর্শ দেয়। তবে, আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ পাঁচ দিন বাড়িয়ে ১০ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়েছে।

বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘১১ আগস্ট থেকে অফিসও খুলে দেয়া হবে। তবে, এ কয়দিনে বাস্তবতার কোনও পরিবর্তন হলে, সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’ তিনি বলেন, ‘দোকানপাট খুললেও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।’

প্রায় ১৪ হাজার কেন্দ্রে একযোগে সপ্তাহব্যাপী এক কোটি মানুষকে টিকা দেয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অগ্রাধিকার পাবেন বয়স্করা।’ মানুষকে ভ্যাকসিন নিতে দৌঁড়াতে হবে না, আমাদের লোকজনই তাদের কাছে পৌঁছে যাবে বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী। শ্রমজীবী এবং কর্মজীবী সকলকে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘টিকা না নিয়ে কেউ কর্মস্থলে যোগ না দেয়।’ এছাড়া ১১ আগস্টের পর করোনাভাইরাসের টিকা নেয়া ছাড়া ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ বাইরে চলাফেরা করলে তাকে শাস্তির আওতায় নেয়া হবে বলেও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ৭ আগস্ট থেকে ৭ দিনের জন্য ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে ১ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দেয়ার যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে সেখানে বয়স্কদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। পর্যাপ্ত টিকার মজুত আছে এবং আরও টিকা আসছে বলেও জানান। এছাড়া করোনা আক্রান্তদের মধ্যে যারা গুরুত্বর না অথচ হাসপাতালে চিকিৎসা দরকার তাদেরকে আবাসিক হোটেলে চিকিৎসা সেবা দিতে সরকার পরিকল্পনা করছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here