Top news 24

অনলাইন ডেস্ক

শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ৭৫ বছর বয়সী মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে আটকের পর মামলা করে মিয়ানমার পুলিশ। সু চির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে দুই বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

গত সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) ভোরে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতি উইন মিন্ত, ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সু চি-সহ শাসকদলের শীর্ষ নেতাদের এবং কয়েকশ’ আইনপ্রণেতাকে আটক করে দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেয় সেনাবাহিনী।২০২০ সালের  নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সু চির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি) সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে।কিন্তু, ফলাফল নিয়ে মিয়ানমারের বেসামরিক সরকার এবং প্রভাবশালী সামরিক বাহিনীর মধ্যে কয়েকদিন ধরে দ্বন্দ্ব ও উত্তেজনা চলতে থাকায় এ সামরিক অভ্যুত্থান ঘটেছে বলে মনে করা হয়। বর্তমান সামরিক সরকার নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে কিনা, সেটি তদন্ত করে দেখছে। 

সু চি’র বিরুদ্ধে আমদানি-রপ্তানির আইন লঙ্ঘনসহ রাজধানী নেপিদোতে অবস্থিত তার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ওয়াকি-টকি রেডিও এবং অবৈধ যোগাযোগের সরঞ্জামের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে সু চি’র সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানিয়েছে তার দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি) সদস্যরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here