লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভ’য়াবহ বি’স্ফোরণে এখন পর্যন্ত ৭৩ জন নি’হত হওয়ার খবর জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো। এছাড়া আ’হতের সংখ্যা অন্তত ৩ হাজারেরও বেশি বলে জানিয়েছে তারা।মঙ্গলবার দুপুরের এই বি’স্ফোরণের ঘটনায় শহরজুড়ে ভবনের জানালার কাচ এবং কয়েকটি বাড়ির ছাউনি ভেঙে পড়ে। বি’স্ফোরণের কারণ এখনো জানা যায়নি। প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব বুধবার দেশটি জাতীয় শোক ঘোষণা করেছেন।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, ভ’য়াবহ দুটি বি’স্ফোরণের পর লেবানন থেকে ১৫০ মাইল দূরের এলাকাও কেঁপে ওঠে। সাইপ্রাসের একটি এলাকা বি’স্ফোরণের পর কেঁপে ওঠে।

বিবিসি, রয়টার্স ও আল-জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, বৈরুতের বাসিন্দারা দূর থেকেও ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখতে পান। রাজধানীর বেশ কিছু এলাকা বি’স্ফোরণের পর কেঁপে উঠে। শহরে প্রা’ণকেন্দ্র থেকে ঘন ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠতে দেখা গেছে। বি’স্ফোরণের শব্দে বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী সাদ হরিরির সদর দপ্তরসহ বি’স্ফোরণে অনেক ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আ’গুন নেভাতে ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন।

টুইটারে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, গো’লাপি রঙের ধোঁয়ার কুণ্ডলী আকাশে উঠছে।বন্দরের কাছে বি’স্ফো’রকের গুদাম আছে বলে জানিয়েছে লেবাননের রাষ্ট্র-পরিচালিত ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সিসহ (এনএনএ) নিরাপত্তা কর্মক’র্তারা। এলাকাটিতে রাসায়নিকেরও মজুদ আছে বলে জানিয়েছেন আরেক কর্মক’র্তা।

কয়েকটি খবরে বলা হচ্ছে, বিস্ফোরণটি দুর্ঘ’টনাবশত ঘটে থাকতে পারে। ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সি ‘এনএনএ’ এর আগে প্রাথমিক খবরে বন্দরের কাছের বি’স্ফো’রকের গুদামে আ’গুন লাগার কথা জানিয়েছিল।

বি’স্ফোরণটি এত শক্তিশালী ছিল যে বাসিন্দারা ভেবেছিল ভূমিকম্প হয়েছে। মানুষজন চি’ৎকার, ছুটোছুটি করেছে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here