শতাব্দী পরিবহনে (১৪) বছরের এক গার্মেন্টস কর্মী গণধর্ষণের শিকার

আবুল কাসেমঃ-মিরপুর প্রতিনিধি

রাজধানীর মিরপুর শাহ আলী থানা এলাকায় চলন্ত গাড়ীতে আবারো ধর্ষণের শিকার হয়েছে (১৪) বছরের এক কিশোরী।
গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে অচেতন অবস্থায় ওই কিশোরীকে চলন্ত গাড়ী থেকে মিরপুর চিড়িয়াখানা রোড উমা মেডিকেল কলেজের সামনে ফেলে রেখে দ্রুত পালিয়ে যায় ধর্ষকরা।
স্থানীয় জনগণ মেয়েটিকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে (৯৯৯) নাইনে জরুরি কল করে বিষয়টি জানান। ঘটনাটি জান্তে পেরে তাৎক্ষণিক শাহ আলী থানার পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে।
শাহ আলী থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম আসাদুজ্জামানের নির্দেশে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নিরস্ত্র মোহাম্মদ মেহেদী হাসানের চৌকশ টিম নিয়ে বিভিন্ন স্থানে আসামিদের গ্রেফতারের উদ্দেশ্যে অভিযানে মাঠে নেমে পড়েন।
গত বুধবার আসামী বাসচালক মোঃ রাফি (৩০) ও হেলপার বিদ্ধান মিয়াকে (৩১) গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় শাহআলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নিরস্ত্র মোহাম্মদ মেহেদী হাসানের চৌকশ টিম। তাদের কাছ থেকে আলামত হিসেবে ধর্ষকদের ব্যবহার করা গাড়ীটি জব্দ করা হয়েছে গাড়ী নং ঢাকা মেট্রো- ব -১৫-২০২৭।
শাহআলী থানার অফিসার ইনচার্জ এ, বি, এম, আসাদুজ্জামান বলেন, এই কিশোরী একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক তার বাবা-মা কেহ নেই পালিত কন্যা হিসেবে পল্লবীর কালশী এলাকায় একটি পরিবারের সঙ্গে থাকে।
তিনি আরও বলেন, মেয়েটি মঙ্গলবার দুপুরে আব্দুল্লাহপুর থেকে চিড়িয়াখানা চলাচল করা বেষ্ট শতাব্দী পরিবহনের বাসে উঠে আমিনবাজারে তার এক আত্মীয়ের বাসায় যাওয়ার কথা ছিল।
কিন্তু বোকাসোকা কিশোরী মেয়েটিকে ভুলভাল বুঝিয়ে গাড়ির ড্রাইভার রাফি (৩০) ও হেলপার বিদ্ধান (৩১) তাকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করেন। এরপর ওই রাত্রেই চিড়িয়াখানা রোডে নির্জন ও নিরব স্থান পেয়ে তাকে এনে গাড়ি ষ্টার্ট থাকা অবস্থায় জোরপূর্বক ওই কিশোরীকে গণধর্ষণ করেন।
তিনি আরও বলেন, ধর্ষিতা মেয়েটিকে সরোয়ারর্দ্দী মেডিকেলে চেকাপ ও চিকিৎসার করানোর পর তাকে সেইফ কাষ্টরীতে রাখা হয়েছে।
এই বিষয়ে শাহআলী থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ৯(৩) ধারায়। গণধর্ষণের একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। যার মামলা নং (৫) তারিখ ০৫/০৮/২০২০ ইং।
জানাগেছে, ধর্ষক রাফির (৩০) বাড়ী জহুরাবাদ দারুসসালাম এলাকাতে থাকতেন ও বিদ্ধান মিয়ার (৩১) বাড়ী কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা।
শাহআলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নিরস্ত্র মোহাম্মদ মেহেদী হাসান বলেন, এ ঘটনারা সাথে আরও কেহ জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি কেহ পলাতক থাকে তাকেও গ্রেফতার করা হবে, চেষ্টা চলছে। কোন মতেই এসকল যঘন্য অপরাধীকে ছাড়দেয়া হবেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here