top news 24

মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরের কালকিনিতে মোঃ রাসেল হাওলাদার নামের এক যুবলীগ নেতার উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় ওই যুবলীগ নেতাসহ দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন। পরে থানা পুলিশের সহযোগীতায় স্থানীয় লোকজন আহতদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে একজনের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুরে এ হামলার ঘটনায় মেয়রসহ ৮জনকে আসামি করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

জানা গেছে, পৌর এলাকার দক্ষিণ জনারদন্দী গ্রামের গৈজদ্দিন বয়াতীর ছেলে মোঃ ফরিদ বয়াতীর বসতঘরে বসে রবিবার সন্ধ্যায় ওই এলাকার যুব সমাজের উদ্যোগে বনভোজনে যাওয়ার জন্য একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ওই আলোচনা সভায় পৌর যুবলীগের অন্যতম সদস্য মোঃ রাসেল হাওলাদার অংশগ্রহণ করেন। এ আলোচনা সভার খবর পেয়ে একই এলাকার এমারত হাওলাদার, স্বপন হাওলাদার, কালু হাওলাদার, দেলোয়ার হাওলাদার, সোহাগ বয়াতীসহ বেশ কয়েকজন যুবক মিলে তাদের উপর হামলা চালায়। এতে আহত হন যুবলীগ নেতা মোঃ রাসেল হাওলাদার ও ফরিদ বয়াতী। পরে কালকিনি থানা পুলিশের সহযোগীতা নিয়ে স্থানীয় লোকজন আহতদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে আহত ফরিদ বয়াতীর অবস্থার অবনতি হলে তাকে প্রথমে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ হামলার ঘটনায় আহত যুবলীগ নেতা রাসেল হাওলাদার বাদী হয়ে একই এলাকার এমারত হাওলাদার, মেয়র এনায়েত হাওলাদার, স্বপন হাওলাদার, কালু হাওলাদার, দেলোয়ার হাওলাদার, ও সোহাগ বয়াতীসহ ৮ জনকে আসামি করে কালকিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
পৌর যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানা জাপান বলেন, মোঃ রাসেল হাওলাদার পৌর যুবলীগের অন্যতম একজন সদস্য। তার উপর যে হামলা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানাই।
আহত যুবলীগ নেতা মোঃ রাসেল হাওলাদার অভিযোগ করে বলেন, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এ হামলা চালানো হয়েছে। তাই আমি মেয়র এনায়েত হোসেনসহ ৮জনের নামে থানায় অভিযোগ করেছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here