top news 24

অনলাইন ডেস্ক

গতকালই মাদকের সঙ্গে বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের নাম শোনা গিয়েছিল। গুঞ্জন ছিল, তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত করবেন ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর কর্মকর্তারা। শেষ পর্যন্ত মাদক কেলেঙ্কারির তদন্তে বলিউডের সমকালীন শীর্ষ তারকা দীপিকা পাড়ুকোনকে তলব করল মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। শুধু দীপিকা নন, একই অভিযোগে ডাকা হয়েছে বলিউডের তরুণ অভিনেত্রী সারা আলী খান ও শ্রদ্ধা কাপুরকেও। আগেই ডাকা হয়েছে বলিউডের আরেক অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিংকে। তিন দিনের মধ্যে ওই চার অভিনেত্রীকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর কার্যালয়ে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর মামলার তদন্তে যুক্ত হয়ে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) একের পর এক নতুন সব খবর বের করে আনছে। কেননা সুশান্তের অপমৃত্যুর তদন্তে নেমে মাদক কেলেঙ্কারির সূত্র খুঁজে পায় তারা। তদন্তের সূত্র ধরে জিজ্ঞাসাবাদের পরে মাদক কেলেঙ্কারির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয় সুশান্তের প্রেমিকা বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর তদন্তে উঠে এসেছে, বাঙালি অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী মাদক সরবরাহকারীদের সঙ্গে কথা বলার জন্য তাঁর মায়ের ফোন ব্যবহার করতেন। এই সংস্থা রিয়ার বাসা থেকে একটি মুঠোফোন আর একটি ল্যাপটপ উদ্ধার করে। সেখান থেকে পাওয়া তথ্য থেকে কিছু হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের নাম পাওয়া যায়। সেই গ্রুপের সদস্যদের সঙ্গে রিয়ার মাদক নিয়ে নানা কথাবার্তা হতো।মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর কর্মকর্তাদের কাছে দেওয়া বক্তব্যে রিয়া স্বীকার করেছেন যে তিনি সুশান্তকে মাদক দিতেন এবং সুশান্তের আর্থিক দিক দেখাশোনা করতেন। রিয়া কর্মকর্তাদের আগেও জানিয়েছিলেন যে ‘কেদারনাথ’ ছবির সেট থেকে সুশান্ত মাদক নেওয়া শুরু করেন। এই বলিউড তারকার বক্তব্য, এই ছবির অনেক অভিনয়শিল্পীই মাদক নিতেন। রিয়ার দাবি, সারা আলী খানও সুশান্তের মাদক সেবনের সঙ্গী ছিলেন। এসব সূত্রে গ্রেপ্তার করা হয় রিয়ার ভাই শৌভিকসহ আরও মাদকসংশ্লিষ্ট বেশ কয়েকজনকে। সে সময় শোনা গিয়েছিল, তদন্তের তালিকায় আরও ২৫ জন বলিউড তারকার নাম আছে। জিজ্ঞাসাবাদে রিয়া বলিউডের বেশ কিছু তারকার নাম বলেছেন। এসব তারকা মাদক কিনতেন ও সেবন করতেন। রিয়া আরও জানিয়েছেন, এসব প্রতিষ্ঠিত তারকা সুশান্তের লোনাভোলা খামারবাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন।সেই সূত্র ধরে গতকাল থেকে মাদকের সঙ্গে জড়িয়ে যায় দীপিকা পাড়ুকোনের নাম। সম্প্রতি একটি হোয়্যাটসঅ্যাপ চ্যাট পাওয়া গেছে দীপিকা ও তাঁর ম্যানেজারের। সেখানে দেখা গেছে, দীপিকা তাঁর ম্যানেজারের সঙ্গে সাংকেতিক ভাষায় কথা বলেছেন। সেগুলো সাধারণত মাদক বিনিময়ে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। চ্যাটে কোকো নামের একটি রেস্তোরাঁয় তাঁদের দেখা করার কথাও পাওয়া যায়। কাকতালীয়ভাবে ওই দিনই (২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর) রাতে আরও কিছু বলিউড তারকার পাশাপাশি দীপিকা পাডুকোনও কোকো ক্লাবের পার্টিতে যান। তিনি ছাড়া সেদিন মুম্বাইয়ের ওই পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন সোনাক্ষী সিনহা, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও আদিত্য কাপুরও।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস নাউ-এ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবার তদন্তকারী সংস্থা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর নজরে পড়ছে কোকো ক্লাবে আয়োজিত ওই অভিজাত পার্টি। ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর রাতে ক্লাবের পার্টিতে ঠিক কী হয়েছিল, তা জানতে সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মাদকদ্যব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো।

যাঁকে নিয়ে এত হইচই, সেই দীপিকা পাডুকোন এ বিষয়ে এখনো মুখ খোলেননি। প্রতিক্রিয়া দেননি তাঁর স্বামী রণবীর সিংও। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর সমন পেয়ে দীপিকা পাডুকোনের ম্যানেজার করিশমা প্রকাশ ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছেন। দীপিকার শরীর ভালো না থাকায় এই অনুরোধ করেছেন কারিশমা।
যাঁকে নিয়ে এত হইচই, সেই দীপিকা পাডুকোন এ বিষয়ে এখনো মুখ খোলেননি। প্রতিক্রিয়া দেননি তাঁর স্বামী রণবীর সিংও। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর সমন পেয়ে দীপিকা পাডুকোনের ম্যানেজার করিশমা প্রকাশ ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছেন। দীপিকার শরীর ভালো না থাকায় এই অনুরোধ করেছেন কারিশমা। জানা গেছে, শকুন বাত্রার আগামী ছবির শুটিংয়ের জন্য বর্তমানে গোয়াতে আছেন দীপিকা পাডুকোন। এই মামলায় তাঁর নাম জড়িয়ে পড়ায় মুম্বাইতে চলে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলিউডে নারী তারকাদের মধ্যে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া এই অভিনেত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here