top news 24

গাজীপুর প্রতিনিধি

ঈদের আনন্দ মুহুর্তেই সারাজীবনের কান্না ও বিষাদে পরিণত হলো। বেড়াতে গিয়ে নানা-নানি, নাতনি ও ফুফু লাশ হয়ে বাড়ি ফিরল। সড়ক দুর্ঘটনায় চার স্বজনের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। স্বজনদের কান্নায় আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রীর বড়িবাড়ি গ্রামের আক্তার হোসেনের পরিবারে।

জানা গেছে, কাপাসিয়ার বড়িবাড়ি গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনের কন্যা রত্নার শ্বশুড়বাড়ি পার্শ্ববর্তী শ্রীপুরের মাওনার বেদজুর পুরান বাজার এলাকায়। ঈদ পরবর্তী বেড়াতে গত বৃহস্পতিবার সকালে তার শ্বশুর বিবাদিয়া গ্রামের শহর আলী সরু, শাশুড়ি আমেনা, স্ত্রী নাসিমা, দুই পুত্র জহিরুল ইসলাম জুয়েল ও সোহেল রানা, কন্যা মারিয়া, নাতি মাহিম, বোন চান বানু, ফুফু বেগমসহ নয়জন একটি অটোবাইকযোগে ওই বাড়িতে যায়। ছেলে সোহেল রানা নিজেই অটোবাইকের চালক ছিল। 

দাওয়াত খেয়ে ওই বাড়ি থেকে ফিরে আসার পথে বিকাল ৪টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের শ্রীপুর তুলা উন্নয়ন বোর্ডের সামনে একটি বেপরোয়া মাইক্রোবাস অটোবাইকটিকে চাপা দেয়। এতে ৯ জন যাত্রীই মারাত্মকভাবে আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠালে কর্তব্যরত ডাক্তার আক্তারের শ্বশুড় বিবাদিয়া শহর আলী সরুকে (৭৫) মৃত ঘোষণা করেন। 

অন্যদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে রাতেই তার স্ত্রী আমেনা বেগম (৭০), বড়িবাড়ি গ্রামের মৃত মোতালিবের স্ত্রী চাঁন বানু (৫৫) ও আক্তার হোসেনের শিশু কন্যা মারিয়া (৪) মারা যায়। অটোবাইক চালক সোহেল রানা ও আক্তার হোসেনের ফুফু বেগমকে কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার রাতেই শহর আলী সরুকে এবং শুক্রবার বিকালে পর্যায়ক্রমে অন্যান্যদের জানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে সোহেল, নাসিমা ও বেগমের অবস্থা গুরুতর।  দুর্ঘটনায় নিহত এবং আহতরা অত্যন্ত গরিব ও খেটে খাওয়া মানুষ। তাই এমপি সিমিন হোসেন রিমি আহতদের যথাযথ চিকিৎসার জন্য কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন এবং সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। অটোবাইকটিকে চাপা দেয়া ঘাতক মাইক্রোবাসটি বর্তমানে মাওনা পুলিশ ফাঁড়িতে আটক রয়েছে এবং চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here