top news 24

বগুড়া প্রতিনিধি

ছেলে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আর বাবা-মা প্রাণ ভয়ে ছেলের কারণে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। পালিয়ে বেড়ানোর অভিযোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার বাবা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বগুড়ার গাবতলী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ফারুক আহম্মেদের বাবা তোজাম্মেল ফকির বলেন, তার ছেলে গাবতলী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ফারুক আহমেদ কারণে অকারণে তাকে ও তার মাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে অত্যাচার, নির্যাতন চালিয়ে আসছে। একারণে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ফারুক আহমেদকে সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কার করে। পরে ফারুক আহমেদ কৌশলে তার বাবাকে ফুসলিয়ে অভিযোগ তুলে নেয়। এমতাবস্থায় ৭ ডিসেম্বর বিকেলে ফারুক তার স্ত্রী, সন্তান ও সহযোগীদের নিয়ে বাড়িতে এসে পুনরায় বাবা-মাকে মারপিট করে নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে নিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।
এ ঘটনায় ১৫ ডিসেম্বর আদালতে মামলা করেন বাবা তোজাম্মেল ফকির। মামলা দায়েরের পর বেপরোয়া হয়ে উঠে ছেলে ফারুক আহমেদ। সব সময় প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। বাড়িতে উঠতে দিচ্ছে না। ছেলের হুমকি-ধামকিতে তিনি ও তার স্ত্রী আত্মগোপন করে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

বগুড়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার রহমান শান্ত জানান, তিনি বিষয়টি জানেন, ফারুক আহমেদকে বারবার নিষেধ করা হলেও বাবা-মার ওপর নির্যাতন ককরছে। এখন তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

গাবতলী থানার ওসি নুরুজ্জামান জানান, মারপিট বা বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার বিষয়টি তার জানা নেই। থানায় কোনো অভিযোগও হয়নি।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফারুক আহমেদ জানান, তার বাবা-মা সহজ সরল অর্ধশিক্ষিত মানুষ। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি গাবতলী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্র্থী এবং ২৮ ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের লোকজন ষড়যন্ত্র করে তার সহজ সরল বাবা-মাকে ভুলবুঝিয়ে সামাজিকভাবে তাকে হেয়প্রতিপন্ন করার ব্যর্থ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। যা পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে স্থানীয় রাজনৈতিক, সামাজিক ব্যক্তিবর্গ ও গণমাধ্যমকর্মীরা সরেজমিন তদন্ত করে সত্যতা পেয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here