Top news 24

ফরিদপুর প্রতিনিধি

লকডাউনে দোকানপাট খোলা রাখার দাবিতে ফরিদপুরের সালথায় পুলিশের সাথে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের সময় গত রাতে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন পুলিশসহ অর্ধশতাধিক মানুষ। আগুন দেয়া হয়েছে ইউএনও ও এসিল্যান্ডের বাসভবনে রাখা গাড়িতে।

পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার রাতে স্থানীয় জনতা সালথা থানা ঘেরাও করলে সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ও টিয়ারশেল ছোড়ে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান হাফেজ জুবায়ের হোসেন। ২৫ বছর বয়সি নিহত যুবায়েরের বাড়ি ফরিদপুরের রামকান্তপুরে। তবে পুলিশ তার মরদেহ এখনো উদ্ধার করতে পারেনি।

এর আগে, সন্ধ্যায় এসিল্যান্ড মারুফা সুলতানা স্থানীয় ফুকরা বাজারে অভিযানে গেলে তার সহকারী একজনকে লাঠিপেটা করে। এ নিয়ে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ বাজারে গেলে জনতার সাথে সংঘর্ষ হয়। পরে ক্ষুব্ধ জনতা সালথা থানা, উপজেলা কমপ্লেক্স ঘেরাও করে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

একপর্যায়ে উপজেলা কমপ্লেক্সের প্রধান ফটক ও থানার ফটকের সামনে আগুন ধরিয়ে দেয় এলাকাবাসী। এসময় উপজেলা কমপ্লেক্সে রাখা ইউএনওর গাড়ি এবং এসিল্যান্ড মারুফার বাড়িতেও ভাঙচুর ও তাঁর গাড়িতে আগুন দেয় বিক্ষুব্ধরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here