Top news 24

অনলাইন ডেস্ক

গত বছর বিয়ের পরিকল্পনা ছিল অভিনয়শিল্পী আবদুন নুর সজলের। কিন্তু আরও অনেকের মতো তাঁর বিয়েতেও বাধা হয়েছে করোনাভাইরাস। সে সময় বিয়ে নিয়ে মুখ খোলার পরিস্থিতিতে ছিলেন না তিনি। করোনার ভ্যাকসিন চলে এসেছে। এখন পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেই বিয়ে করবেন সজল। ‘সাক্ষীমানব’ নাটক নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এসব তথ্য দিলেন সজল।

‘সাক্ষীমানব’ নাটকে দেখা যায়, সজল যাঁদের বিয়েতে সাক্ষী দেন, তাঁদের কপাল খুলে যায়। একসময় তাঁর চারপাশের মানুষ বিয়ের সাক্ষী দেওয়ার জন্য তাঁকে ঘর থেকে ধরে নিয়ে যান। বিয়ের সাক্ষী হিসেবে তাঁর চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দুই বন্ধু মিলে একটি অফিস খুলে বসেন। এভাবেই এগোতে থাকে ‘সাক্ষীমানব’ নাটকের গল্প। গল্পটি নিয়ে বেশ খুশি তিনি। বিটিভির বৈচিত্র্যপূর্ণ গল্পের কাজ নিয়ে তিনি বেশ খুশি। গল্পে পরে তাঁকেও বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয়।

নাটকে বহুবার বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন, নিজে বিয়ে করছেন কবে? বিয়ের কথা শুনেই হেসে বললেন, পরিস্থিতি ভালো হলে। জানতে চাই, বিয়ের জন্য পাত্রী পছন্দ আছে কি না? এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কিছু জিনিস ব্যক্তিগত থাকা ভালো। আমি প্রফেশনাল মিডিয়ায় কাজ করি। এখন যাঁর সঙ্গে গাটছড়া বাঁধা হবে, তিনি এই মিডিয়া জগতের না–ও হতে পারেন। তিনি যদি মিডিয়ার না হন, তাহলে তাঁর মতোই তাঁকে থাকতে দেওয়া উচিত। কাকে বিয়ে করছি, এখনই সেটা বলতে চাই না।’ ২০২০ সালে তাঁর বিয়ের পাকা কথা ছিল, কিন্তু করোনায় সেটা আর হয়ে ওঠেনি। এবার সব পাকাপাকি হলেই জানাবেন। সজল বলেন, ‘বিয়ে একটি আনুষ্ঠানিকতার বিষয়। অনেক মানুষের জড়ো হওয়ার বিষয় আছে। ভ্যাকসিন আসুক, করোনার ঝুঁকি থেকে আমরা মুক্ত হলেই বিয়ের ঘোষণা দেব। সেটা যেকোনো সময় হতে পারে।’নাটক, সিনেমা, ওয়েব সিরিজ তিন মাধ্যমেই কাজ করছেন সজল। জানালেন ওয়েব সিরিজে কাজ করতেই তাঁর ভালো লাগে। নাটকটা তাঁর ভালোবাসার জায়গা। ফিল্মটা তাঁর স্বপ্ন। এই স্বপ্ন তিনি নষ্ট করতে চান না। যে কারণে তিনি খুব বেছে বেছে সিনেমায় অভিনয় করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের নাটক নিয়ে প্রচুর পরিমাণ অভিযোগ থাকে। চাইলেও আমরা একটু আরামে তিন–চার দিনে শুটিং করতে পারি না। দুই দিনে শারীরিক ও মানসিক চাপ নিয়ে শুটিং করতে হয়। কিন্তু ওয়েব ফিল্মে অনেক সময় নিয়ে, ডিটেইলসে কাজ করা যায়। গল্পে বৈচিত্র্য এবং বড় একটি আয়োজন থাকে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here