Top news 24

অনলাইন ডেস্ক

স্বামীর প্ররোচনায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফির মামলা করেন এক নারী। ওই মামলায় হাইকোর্টে জামিন নিতে গেলে অভিযুক্তের পক্ষে দাঁড়ান কথিত ভুক্তভোগী। এসময় ক্রিকেটার নাসিরের বিয়ের প্রসঙ্গ উঠে আসে হাইকোর্টে। আদালত বলেন, নৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে সমাজে বাড়ছে এমন ঘটনা।

ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ে নিয়ে যখন আলোচনা সমালোচনা পুরো দেশজুড়েই। ঠিক তখনই হাইকোর্টে একই ধরণের এক বিয়েতে জামিন চাইতে এসেছেন এক ভুক্তভোগী।

রাজধানীর দক্ষিণখান থানার পারভেজ ইসলাম সকালে হাইকোর্টে আসেন জামিন চাইতে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি খাদিজা আক্তার নামে এক নারীকে ধর্ষণ করেছেন। অভিযোগ এখানেই শেষ নয়, আরেকটি মামলা আছে পর্ণোগ্রাফি আইনে।
নাটকীয়তার শুরু হয় যখন জামিন শুনানিতে হাজির হন মামলার বাদী খাদিজা আক্তার। তিনি জানান, মামলা দিতে বাধ্য করেছেন তার স্বামী। এরই মধ্যে সেই স্বামীকে দিয়েছেন তালাকও। শিগগিরই বিয়ে করবেন পারভেজ ও খাদিজা।

ক্ষুব্ধ হয়ে হাইকোর্ট দু’জনকে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখেন। বিকাল সাড়ে তিনটার পর শুরু হয় জামিন শুনানি। এসময় আদালত বলেন, এক ক্রিকেটারের বিয়ে নিয়েই তোলপাড় দেশ, এর মধ্যেই আরেক ঝামেলা এসে পড়ল হাইকোর্টের ঘাড়ে। আদালতের মন্তব্য, সামাজিক ও নৈতিক অবক্ষয়ের কারণে এ ধরনের ঘটনা বাড়ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here