গ্রামীন জনপদে
গরীব অসহায় দুঃস্থ পীড়িতদের মাঝে সেবা দ্বোরগোড়ায় পৌছে দিতে হাজেরা খাতুন হেলথ কেয়ার নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বাগেরহাট থেকে বিশেষ প্রতিনিধি আজাদ রুহুল আমিনের প্রতিবেদন। আধুনিক ইমারত ভবনে সু–নিয়ন্ত্রিত কক্ষের শ্রেণী বিন্যাস। প্যাথলজি ডিজিটাল এক্সরে থেরাপি। ব্যবহ্রত দ্রব্যাদি অপসারনে পরিবেশ দুষন রোধে তা দ্রুতই পোড়ানোর কারনে এ বেসরকারি হাসপাতালের প্রতি দৃষ্টি নিবদ্ধ নজর কাড়ার মতই।

এক ঝাক দক্ষ সেবা প্রদানকারী কর্মকর্তা নার্স কর্মচারী। খুলনা থেকে আগত ৬ জন বিশেষজ্ঞ সহ ১৮ জন মেডিকাল চিকিৎসক সম্পুর্ন স্বাস্থ্য সচেতনতা অবলম্বনে রুগীদের প্রতিনিয়ত মানসম্মত ব্যতিক্রমী অনন্য সেবায় ভুমিকা রেখে চলেছে।

লাভ নয়!মুনাফা নয়!!একে লালন করে সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিত করতে হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদ একযোগে নিরলস শ্রম মেধা মননশীলতার সুমন্বয়ে সুচিন্তিত মতামত ত্বরান্বিত করছে,বেগবান করছে তাদের আগামীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে।

রুগী তার সীমিত স্বল্প খরচে চিকিৎসকের শরণাপন্ন, চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র এবং যে কোন জেলা আধুনিক বিভাগীয় শহরের ব্যায়বহুল, সময় বাচাতে নির্ভিঘ্ন নিজ এলাকায় এমন অত্যাধুনিক সেবা পেয়ে তারা অত্যন্ত আনন্দিত খুশি।

হাজেরা খাতুন হেলথ কেয়ার লিমিটেড কচুয়া বলেশ্বর সেতু সংযোগ সড়কে একটি সুনিবিড় ছায়াঘেরা প্রশস্থ স্বাস্থ্যকর পরিবেশে অবস্থিত।

হাসপাতালের সাথে যারা জড়িত তাদের মানসম্মত সেবা প্রদানে সদিচ্ছা ও আন্তরিকতার কোনই ঘাটতি নেই।যেটি অবাক করার মতই।

হাসপাতালের অন্যতম কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত উপ সচিব জনাব স্বপন কুমার মন্ডল ট্যুরিজম বেজ অর্গানাইজেশন “জোয়ার এর নির্বাহী পরিচালক জনাব আব্দুর রহমানকে পরিদর্শনের আমন্ত্রন জানালে তিনি সরেজমিন অবস্থা পর্যবেক্ষন করে অত্যন্ত সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং তিনি তার সর্বোপরি সাহায্য সহযোগীতার হস্ত সম্প্রসারিত করার দৃঢ় মনোভাব পোষন করেন।সফরসঙ্গী ছিলেন বিশিষ্ট কলামিস্ট সাংবাদিক আজাদ রুহুল আমিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here