Top news 24

গাজীপুর প্রতিনিধি

জয়দেবপুর রেলওয়ে জংশনে সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতিসহ ১০ দফা দাবিতে অবস্থান ধর্মঘট করেছে গাজীপুর প্যাসেঞ্জার্স কমিউনিটি। আজ সকাল ৭টা থেকে ৮টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী শহরের জয়দেবপুর রেল জংশনে এই অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করা হয়।

আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রাবিরতি ছাড়াও ট্রেনের বগি বৃদ্ধি, জয়দেবপুর রেল ক্রসিংয়ে ওভার ব্রিজ নির্মাণ, জয়দেবপুর স্টেশনে ট্রেনের আসন বৃদ্ধি, জয়দেবপুর রেলজংশনকে আধুনিকায়ন এবং নারী যাত্রীদের জন্য বগি সংযোজনসহ ১০ দফা দাবি তুলে ধরেন তারা।

গাজীপুর প্যাসেঞ্জার্স কমিউনিটির সভাপতি প্রকৌশলী সামসুল হকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলী, আওয়ামী লীগ নেতা আনিছুর রহমান আরিফ, হোসনে আরা সিদ্দিকা জুলি, মোহাম্মদ শরীফ হোসাইন প্রমুখ। কর্মসূচি চলাকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী, আইনজীবী, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার কয়েকশো নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।
সভাপতির বক্তব্যে প্রকৌশলী সামসুল হক জানান, করোনাকালীন সময়ে ‘অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প” নামে একটি প্রকল্প চালু করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। প্রকল্পটির মাধ্যমে রেলওয়ে পরিচালিত ট্রেনগুলিতে আসনবিহীন যাত্রী নিয়ন্ত্রণ করা হলেও বেসরকারিভাবে চালিত ট্রেনগুলি চলছে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে গাদাগাদি, ঠাসাঠাসি যাত্রী নিয়ে। এতে সীমাহীন কষ্টে পড়েছে গাজীপুর থেকে ঢাকায় যাতায়াতকারী নিয়মিত যাত্রীরা। তাই ‘অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প’ না করে সেটিকে অতিরিক্ত যাত্রী ম্যানেজমেন্ট প্রজেক্ট করার দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, প্রায় ৭০ লাখ মানুষ গাজীপুর জেলা ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বসবাস করে। শিল্পায়নের কেন্দ্রবিন্দু এবং কর্মসংস্থান ও জনসংখ্যার বিবেচনায় ঢাকা দক্ষিণ, ঢাকা উত্তরের সমান সংখ্যক যাত্রী এবং গুরুত্বপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও ৯টি আন্তঃনগর ট্রেন জয়দেবপুর জংশনে কোন স্টপেজ দেয়া হচ্ছে না। যদিও স্বল্প দূরত্বের অনেক স্টেশনেরই স্টপেজ দেয়া হচ্ছে। গাজীপুরে ট্রেনের স্টপেজ না থাকা এবং চাহিদা অনুযায়ী টিকেট না পাওয়ার কারণে যাত্রীদের এয়ারপোর্ট থেকে যাতায়াত করতে হয়। ফলে এয়ারপোর্ট-গাজীপুর যাওয়া-আসা সড়কপথে বাড়তি যাত্রী চাপ সৃষ্টি করছে এবং যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here