top news 24

বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ার শেরপুরে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক গৃহবধূ গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ধর্ষণের পর গ্রাম্য মাতবরদের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকায় আপোষ করার প্রস্তাবে রাজী না হলে ওই নারীকে গ্রাম ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয়। পরে ঘটনা জানাজানি হলে থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করে।
জানা যায়, বুধবার সকালে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে শেরপুর থানায় একটি গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে জামাইল মজলিশিপাড়া গ্রামের মাসুদ রানার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী স্ত্রী বসতবাড়ির সামনে বসে কাজ করছিলেন। এ সময় রবিউল ইসলাম রুবেল ও আব্দুল জলিল তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। এরপর রুবেলের বাড়ির শয়নকক্ষে নিয়ে এই গৃহবধূর মুখ গামছা দিয়ে মুখ বেধে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। পরবর্তীতে ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে গ্রাম্য মাতবররা গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে আপোষ-রফা করে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালায়। মাতব্বরদের এই সালিশ মানতে রাজী না হওয়ায় ভুক্তভোগী গৃহবধূ ও তার পরিবারকে গ্রাম ছাড়া করার হুমকি দেয় তারা। পরে ঘটনাটি জানাজানি হলে ২৭ অক্টোবর রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার জামাইল বাজার এলাকা থেকে বিশালপুর ইউনিয়নের জামাইল স্কুলপাড়া গ্রামের রবিউল ইসলাম রুবেল (১৯), হাটখোলা গ্রামের আব্দুল জলিল (৩২) ও গ্রাম্য মাতব্বর মজলিশী পাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলামকে (৫৫) গ্রেফতার করে।
এ ঘটনায় থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি দুই ধর্ষক ও এক গ্রাম্য মাতবরকে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মামলায় অভিযুক্ত অন্যদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here