top news 24

আবার বিয়ে করবে বলে নিজের মা, তিন কন্যা ও স্ত্রীকে হত্যা করল এক ব্যক্তি। এমনকি হত্যা করার চেষ্টা করেছিল চতুর্থ ছোট মেয়েকেও। কোনওক্রমে রেহাই পেয়েছে সে। ইতিমধ্যেই পুলিশ গ্রেফতার করেছে ওই ব্যক্তিকে।

মিশরের এশিয়টে ঘটেছে এই ঘটনা। জানা গেছে, ওই ব্যক্তি ফার্মে কাজ করেন।  একজন নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিল সে। সেই নারীও তার স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে ওই ব্যক্তিকে বিয়ে করার আশ্বাস দিয়েছিলেন। তাই নিজের পরিবারকে হত্যা করতে মেতেছিল এই ব্যক্তি।

মা, স্ত্রী ও তিন মেয়েকে হত্যাও করে ফেলেছিল। অবশেষে নজর ছিল ছোট মেয়েকে শেষ করার। রান্নাঘরে দড়ি দিয়ে ১৩ বছরের ছোট মেয়ের গলায় ফাঁস বসিয়েও দিয়েছিল। অজ্ঞান মেয়েকে মৃত ভেবে চলে যায় ওই ব্যক্তি। কোনও ক্রমে বেঁচে যায় মেয়েটি। ৫ জনকে খুন করার পর বাড়িটিতে আগুন লাগিয়ে দেয় ওই ব্যক্তি। মৃতদেহগুলিকে ঝলসানো অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

এখন পুলিশি হেফাজতে রয়েছে ওই ব্যক্তি। যদিও তার নাম ও বয়স প্রকাশ করা হয়নি। বিগত কয়েক বছরে মিশরে পারিবারিক খুনের ঘটনা প্রায়শই দেখা গেছে। এবছরই কায়রোতে দুই শিশুকে চারতলা থেকে ছুড়ে ফেলেন এক মানসিক ভারসাম্যহীন মা। তারপর নিজেও ঝাঁপ দেন। গত বছর মিশরের কফর এল শেখে একজন ডাক্তারকে তার  স্ত্রী ও তিন সন্তানকে খুনের দায়ে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল আদালত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here